২২, অক্টোবর, ২০২০, বৃহস্পতিবার

এক নজরে করোনা ভ্যাকসিন ‘স্পুটনিক ভি’

রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন ‘বিশ্বের প্রথম করোনা ভ্যাকসিন’ নিবন্ধনের কথা জানিয়েছেন মঙ্গলবার (১১ আগস্ট)। তবে ক্লিনিক্যাল ট্রায়ালের সবগুলো ধাপ অতিক্রম করার আগেই কী করে একটি ভ্যাকসিনের চূড়ান্ত অনুমোদন দেওয়া হলো, তা নিয়ে বিশ্বব্যাপী প্রশ্ন উঠেছে। ভ্যাকসিনটি সম্পর্কে এ পর্যন্ত যা জানা গেছে:

স্পুটনিক ভি নামে ভ্যাকসিনটির নিবন্ধন সম্পন্ন করেছে রুশ স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়। তাদের দাবি:

ক্লিনিক্যাল ট্রায়ালের ফলাফল অনুযায়ী টিকাটি কার্যকর ও নিরাপদ।
ভ্যাকসিন গ্রহণকারীদের শরীরে পর্যাপ্ত অ্যান্টিবডির উপস্থিতি পাওয়া গেছে।
ভ্যাকসিন গ্রহণকারীদের কারও গুরুতর কোনও পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া দেখা যায়নি।
ভ্যাকসিন গ্রহণের ২ বছর পর্যন্ত ইমিউনিটি কার্যকর থাকবে।

যেভাবে ভ্যাকসিনের বণ্টন হবে

অচিরেই গণহারে ভ্যাকসিন উৎপাদন শুরু হবে বলে জানিয়েছেন প্রেসিডেন্ট পুতিন।
রুশ স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের গ্যামেলিয়া রিসার্চ ইনস্টিটিউট ও সেখানকার বায়োফার্মাসিউটিক্যাল কোম্পানি বিনোফার্মের তত্ত্বাবধানে গণহারে ভ্যাকসিন উৎপাদন করা হবে।
ইতোমধ্যেই বেশকিছু দেশ রাশিয়ার কাছে ভ্যাকসিনটির ব্যাপারে আগ্রহ প্রকাশ করেছে।

টিকা কর্মসূচি

স্বাস্থ্যকর্মী ও শিক্ষকদের মধ্যে সবার আগে ভ্যাকসিন প্রয়োগ করা হবে।
আগস্টের শেষ নাগাদ কিংবা সেপ্টেম্বরের শুরুতে স্বাস্থ্যকর্মীদের টিকা দেওয়া শুরু হবে।
১ জানুয়ারি, ২০২১ থেকে সাধারণ মানুষের মধ্যে টিকা দেওয়া শুরু হবে।
টিকা প্রয়োগ হবে স্বেচ্ছামূলক।

১২ জুলাই রাশিয়ার পক্ষ থেকে দাবি করা হয়, গামালেই ইনস্টিটিউট অব এপিডেমোলজি অ্যান্ড মাইক্রোবায়োলজির উদ্ভাবিত ভ্যাকসিনের ক্লিনিক্যাল ট্রায়াল সফলভাবে শেষ করেছে তারা। ২২ জুলাই (বুধবার) রুশ সেনাবাহিনীর পক্ষ থেকে জানানো হয়, তাদের ভ্যাকসিনটি প্রস্তুত। এ মাসের শুরুতে (১ আগস্ট শনিবার) রাষ্ট্রীয় রুশ বার্তা সংস্থা আরআইএ স্বাস্থ্যমন্ত্রীকে উদ্ধৃত করে জানায়, অক্টোবর মাস থেকে জনগণকে করোনাভাইরাসের ভ্যাকসিন দেওয়া শুরু হবে। তবে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার পক্ষ থেকে রাশিয়াকে করোনাভাইরাসের ভ্যাকসিন উদ্ভাবনে আন্তর্জাতিক নির্দেশনা অনুসরণ করার আহ্বান জানানো হয়।

মঙ্গলবার (১১ আগস্ট) প্রেসিডেন্ট পুতিন জানান, স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় থেকে তারা ভ্যাকসিনটির ব্যাপারে সবুজ সংকেত পেয়ে গেছেন। এখন তারা গণহারে এটির উৎপাদন শুরু করবেন।

পুতিন জানিয়েছেন, তার মেয়ে ভ্যাকসিনটি গ্রহণ করার পর সামান্য জ্বরাক্রান্ত হয়েছিলেন। তবে দ্রুতই তার তাপমাত্রা স্বাভাবিক পর্যায়ে চলে এসেছে।

সর্বশেষ নিউজ