২০, অক্টোবর, ২০২০, মঙ্গলবার

বিরামপুর উপজেলা পরিষদ চত্বরে পাবলিক টয়লেটের বেহাল দশা

নূরে আলম সিদ্দিকী নূর, বিরামপুর (দিনাজপুর): সরকারি-বেসরকারি সেবা প্রত্যাশী শত মানুষের আনাগোনা। উপজেলা সমাজসেবা কার্যালয়, একটি বাড়ি একটি খামার, মহিলা বিষয়ক কার্যালয় ও পল্ললী দারিদ্র বিমোচন ফাউন্ডেশন কার্যালয়ে পুরুষের চেয়ে নারীদের উপস্থিতি বেশি। অন্যদিকে উপজেলা চত্বরেই ভূমি রেজিস্ট্রি অফিস থাকায় সেখানে শতশত মানুষের উপচে পড়া ভীড়। উপজেলার বিভিন্ন এলাকা থেকে উপজেলা পরিষদের চত্বরে আসা এসব মানুষের জন্য রয়েছে একটি মাত্র পাবলিক টয়লেট। তবে যে টয়লেটটি রয়েছে সেটিরও আবার নেই কোনো নিরাপদ দরজা, সেখানে যেকোনো সময় যেকোনো ব্যক্তি অনায়াসেই ঢুকতে পারেন। দৃশ্যটি দিনাজপুরের বিরামপুর উপজেলা পরিষদ চত্বরের মধ্যে সমাজসেবা ও উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসের মাঝখানের ফাঁকা জায়গায় অবস্থিত পাবলিক টয়লেটের।

সোমবার দুপুরে সেখানে সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, পাবলিক টয়লেটের দরজা, দেয়াল ও ছাদ লতাজাতীয় গাছে ভরে গেছে। গেইটের প্রবেশমুখের বামপাশের দেয়ালে জন্মানো বনজ লতার লকলকে আগা ডানপাশে থাকা লোহার দরজার গ্রিলকে আলিঙ্গন করার আপ্রাণ চেষ্টা করছে। এ দৃশ্য দেখে বুঝাই যাচ্ছে, নেহাত বিপদে না পড়লে এই পাবলিক টয়লেটে কেউ পা রাখেন না। ভেতরের পরিবেশ আরো ভূতুড়ে! মেঝে ও দেয়ালে মশা-মাছির খেলা চলছে। নোংরা ও দুর্গন্ধের কারণে সেখানে নাকে কাপড় না দিয়ে প্রবেশ করার কোনো পরিবেশ নেই। শুধু কি তাই, এই টয়লেটে নেই কোনো পানির ব্যবস্থা। দূরদূরান্ত থেকে আসা এখানকার অফিসের সেবাপ্রত্যাশীরা প্রকৃতির ডাক সারতে পড়েন প্রচণ্ড ভোগান্তিতে। সরকারি অফিস কক্ষের ভেতরে থাকা টয়লেটগুলো সেখানকার কর্মকতা ও স্টাফদের জন্য নির্দিষ্ট থাকায় এবং অনেকসময় সেবাপ্রত্যাশীদের ব্যবহার করতে না দেয়ায় সাধারণ মানুষ অধিকাংশ সময় এ সমস্যা নিয়ে বিড়ম্বনায় পড়েন।

সমাজসেবা কার্যালয়ে বিষয়ে সেবা নিতে আসা রাহেলা বেগম (৫৫) বলেন, এ অফিসে একটি কাজের জন্য সকাল দশটায় এসেছি, এখন দুপুর হয়েছে। পাবলিক টয়লেটটি খু্বই নোংরা হওয়ায় সেখানে যাওয়ার পরিবেশ নেই। খুবই অস্বস্তি বোধ করছি।

ভূমি রেজিস্ট্রি অফিসের সামনের চত্বরে দলিললেখক সমিতির প্রায় ৬০ জন সদস্য নিয়মিত বসেন। তাদের নিকট উপজেলার বিভিন্ন এলাকা থেকে প্রতিদিন সেবাপ্রত্যাশীরা আসেন। দলিললেখক মোস্তাফিজুর রহমান বলেন, সরকারি কার্যদিবসে আমরা দলিললেখকরা এখানে প্রতিদিন সকাল থেকে বিকাল পর্যন্ত থাকি। জমি রেজিস্ট্রির কাজে এখানে প্রতিদিন সবমিলিয়ে প্রায় হাজার খানেক মানুষ আসেন। এখানকার পাবলিক টয়লেটটি ব্যবহার অনুপযোগী হওয়ায় আমরা সবাই সমস্যায় পড়ি। বিশেষ করে নারীরা আরো বেশি সমস্যায় পড়েন। উপজেলা চত্বরে একটি স্বাস্থ্যসম্মত পাবলিক টয়লেট তৈরি করা অত্যন্ত জরুরি।

এ বিষয়ে উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান উম্মে কুলসুম বলেন, আগামীতে উপজেলা পরিষদের মাসিক সমন্বয় সভায় পাবলিক টয়লেটের সমস্যার বিষয়টি উপস্থাপন করা হবে। এছাড়াও আমি ব্যক্তিগতভাবে ইউএনও ও উপজেলা চেয়ারম্যানকেও এ ব্যাপারে জানাবো।

সর্বশেষ নিউজ