১৪, অক্টোবর, ২০২০, বুধবার

হিন্দু স্ত্রীকে ‘বোরখা পরে সবার সামনে নামাজ পড়তে’ বলেন শাহরুখ

শুধু রিলের লাইফে নয়, রিয়েল লাইফেও একজন সফল মানুষ শাহরুখ খান। নব্বইয়ের দশকের শুরুতে ভালোবেসে ঘর বেঁধেছিলেন হিন্দু ঘরের মেয়ে গৌরীর সঙ্গে। গত প্রায় তিন দশক এই দম্পতির একসঙ্গে পথচলা।

সুখের সংসারে ২৯তম বছরে পা দিয়ে সম্প্রতি ভারতের একটি জাতীয় দৈনিকে দেয়া সাক্ষাৎকারে বৈবাহিক জীবনের নানা অজনা তথ্য তুলে ধরেন বলিউড বাদশা।

ওই সাক্ষাৎকারে স্ত্রীকে বোরখা পরতে ও নিজের নাম পাল্টে আয়েশা রাখার কথাও বলেছিলেন বলে জানান শাহরুখ।

সংসার জীবনের স্মৃতিচারণ করে ‘দেবদাস‘খ্যাত এই বলিউড অভিনেতা বলেন, ‘ভালোবাসার কোনও নিয়ম-কানুন আছে বলে আমার জানা নেই। স্ত্রীর থেকেও বড় কথা, গৌরী আমার হৃদয়ের অংশ। আমাদের বিয়ের অনুষ্ঠানের দিন বেশ মজার একটা স্মৃতি মনে আছে। পুরো বাড়ি মেহমানে ভরা ছিল। অনেকে পাঞ্জাব থেকে এসেছিলেন। আমি খেয়াল করলাম, সবার মাঝে কেমন যেন একটা কৌতুহল। অনেক দেখলাম কথা বলছিল, গৌরী কি হিন্দু না মুসলিম- এটা নিয়ে।’

শাহরুখ খান বলেন, ‘তখন আমি গৌরীকে জিজ্ঞাসা করলাম, ‘তুমি বোরখা পরে ও নামাজ পড়ে সবার সামনে দেখাও। আর তোমার নাম পরিবর্তন করে আয়েশা রাখো’। যদিও আমার সেই কথায় বাড়ির সবাই বেশ অবাক হয়ে গিয়েছিল। কারণ আমার বাড়ির মানুষ জানতো, ধর্মীয় ব্যাপারে আমি সব ধর্মকে সমান শ্রদ্ধা করি।’

বিয়ের দিনের সেই ঘটনার অনেক বছর পর গৌরীও একবার ‘কফি উইথ করণ’ শো’তে এসে জানিয়েছিলেন, সেই ঘটনার পর কখনোই ধর্মীয় বিষয়ে শাহরুখ তাকে কোনও চাপ দেননি। অনেক দূর-দূরান্ত থেকে আত্মীয়-স্বজন এসেছিল, সেজন্যই হয়তো বিয়ের দিন শাহরুখ তাকে বোরখা পরতে ও নামাজ পড়তে বলেছিলেন।

শাহরুখের মতো একজন সুপার হিরোকে নিজের আঁচলে প্রায় ৩০ বছর ধরে বেঁধে রাখাও সহজ কথা নয়। স্ত্রী হিসেবে গৌরী সেটি পেরেছেন। বহু সুন্দরীর নজর থেকে স্বামীকে আগলে রেখেছেন বছরের পর বছর।

গৌরী বলেন, ‘শাহরুখ কখনোই ধর্ম নিয়ে আমাকে চাপ দেয়নি। আমাদের বড় ছেলে নিজেকে মুসলমান হিসেবে দাবি করে। আমাদের বাসায় ধর্মীয় বিষয়গুলো সহনশীলভাবে দেখা হয়।’

সর্বশেষ নিউজ