১, ডিসেম্বর, ২০২০, মঙ্গলবার

অটোপাসের এইচএসসির মানই ১২৫!

চলতি বছর মেডিকেল ও ডেন্টাল কলেজে শিক্ষার্থীদের ভর্তি নেয়া হবে মোট ৩০০ পয়েন্টের ভিত্তিতে। এর মাঝে ভর্তি পরীক্ষা নেয়া হবে ১০০ নম্বরের, এসএসসির ফলের মান ৭৫ আর এইচএসসি পরীক্ষার ফলাফলের মান ১২৫। স্বাস্থ্য ও পরিবারকল্যাণ মন্ত্রণালয় থেকে প্রকাশিত নীতিমালায় এ ঘোষণা দেয়া হয়েছে।

এই নীতিমালা ‘মেডিকেল, ডেন্টাল কলেজে এমবিবিএস, বিডিএস কোর্সে শিক্ষার্থী ভর্তির নীতিমালা-২০২০’ নামে অভিহিত হবে। বাংলাদেশ মেডিকেল অ্যান্ড ডেন্টাল কাউন্সিল (বিএমঅ্যান্ডডিসি) প্রণীত এই নীতিমালা দেশের সব সরকারি-বেসরকারি মেডিকেল, ডেন্টাল কলেজ ও ডেন্টাল ইউনিটে ২০২০-২১ শিক্ষাবর্ষ থেকে এমবিবিএস-বিডিএস কোর্সে শিক্ষার্থী ভর্তির ক্ষেত্রে কার্যকর হবে।

নির্বাচন-প্রক্রিয়া
এসএসসি ও এইচএসসি বা সমমানের পরীক্ষায় প্রাপ্ত জিপিএ মোট ২০০ নম্বর হিসাবে নির্ধারণ করা হবে। এসএসসি ও এইচএসসিতে প্রাপ্ত জিপিএ এবং ভর্তির জন্য লিখিত পরীক্ষায় প্রাপ্ত নম্বরের ভিত্তিতে মেধাতালিকা তৈরি করে প্রার্থী নির্বাচন করা হবে। এসএসসি/সমমান পরীক্ষায় প্রাপ্ত জিপিএর ১৫ গুণ (৭৫) + এইচএসসি/সমমান পরীক্ষায় প্রাপ্ত জিপিএর ২৫ গুণ (১২৫)-এর সঙ্গে ভর্তি পরীক্ষায় প্রাপ্ত নম্বরের ভিত্তিতে মেধাতালিকা তৈরি করা হবে।

তবে পূর্ববর্তী বছরের এইচএসসি পাস প্রার্থীদের ক্ষেত্রে মোট নম্বর থেকে ৫ নম্বর কেটে মেধাতালিকা তৈরি করা হবে। সরকারি ও বেসরকারি সব মেডিকেল কলেজের জন্য একই সঙ্গে একই প্রশ্নপত্রে ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে। মেডিকেল কলেজে ভর্তির পর সরকারি ও বেসরকারি সব ডেন্টাল কলেজ এবং ডেন্টাল ইউনিটের জন্য একই সঙ্গে অভিন্ন প্রশ্নপত্রে ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে।

নতুন নীতিমালা অনুযায়ী মেডিকেল-ডেন্টাল ভর্তির যোগ্যতা
বিজ্ঞান বিভাগ থেকে এসএসসি ও এইচএসসি বা সমমান পরীক্ষায় মোট জিপিএ কমপক্ষে ৯ পয়েন্ট হতে হবে। সব আদিবাসী ও পার্বত্য জেলার প্রার্থীদের ক্ষেত্রে পরীক্ষা দুটিতে মোট জিপিএ কমপক্ষে ৮ পয়েন্ট হতে হবে। তবে এককভাবে কোনো পরীক্ষায় জিপিএ-৩.৫০ পয়েন্টের কম গ্রহণযোগ্য নয়। এসএসসি ও এইচএসসি বা সমমান পরীক্ষায় অবশ্যই পদার্থবিজ্ঞান, রসায়ন ও জীববিজ্ঞান থাকতে হবে। জীববিজ্ঞানে ন্যূনতম জিপিএ-৩.৫০ থাকতে হবে।

যে শিক্ষাবর্ষের জন্য মেডিকেল, ডেন্টাল কলেজ ও ডেন্টাল ইউনিটে ভর্তি পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করবে, সেই ইংরেজি বর্ষ বা পূর্ববর্তী ইংরেজি বর্ষে প্রার্থীকে এইচএসসি বা সমমান পরীক্ষায় পাস করতে হবে। সংশ্লিষ্ট আবেদনকারীকে তার এইচএসসি বা সমমান পরীক্ষায় পাসের পূর্ববর্তী দুই ইংরেজি বছরের মধ্যে এসএসসি বা সমমান পরীক্ষায় পাস করতে হবে।

ভর্তি পরীক্ষার নম্বরের বিষয়ভিত্তিক বিভাজন
পদার্থবিদ্যা ২০, রসায়নবিদ্যা ২৫, জীববিজ্ঞান ৩০, ইংরেজি ১৫ ও সাধারণজ্ঞান (বাংলাদেশের ইতিহাস ও মুক্তিযুদ্ধ) ১০ অনুযায়ী অনুষ্ঠিত হবে। প্রতিটি ভুল উত্তরের জন্য ০.২৫ নম্বর কাটা হবে। পরীক্ষায় ৪০ নম্বরের কম পেলে অকৃতকার্য হিসেবে বিবেচনা করা হবে।

সর্বশেষ নিউজ