১, ডিসেম্বর, ২০২০, মঙ্গলবার

১৬৬টি দেশের নিবার্চন কেমন ছিলো?

বাংলাদেশের বর্তমান জাতীয় সংসদ গঠনের জন্য আয়োজিত ৩০ ডিসেম্বর নির্বাচন গোটা বিশ্বে বিতর্কিত নির্বাচনের সূচকে উল্লেখিত হয়েছে। গত ১১ বছরের ইতিহাসে প্রথমবারের মতো এই নির্বাচনে সকল রাজনৈতিক দল অংশ নিয়েছিল। তবে সে বিবেচনায় ৩০ ডিসেম্বর জাতীয় নির্বাচনের একটা ভিন্ন দিক ছিলো। সে নির্বাচনের ফলাফল ছিলো সম্পূর্ণ এক পাক্ষিক। অনেক ভোট কেন্দ্রে একশো ভাগ ভোট পড়ে বলে ফলাফলে দেখা যায়। ক্ষমতাসীন দলের প্রাথীর বাইরে অন্য কেউ ভোট পাননি অনেক কেন্দ্রে।

এদিকে গত মঙ্গলবার যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। কিন্তু ভোটের ফল এখনও চূড়ান্ত হয়নি। তবে ভোটের বাক্সে জনমত জড়িপে জো বাইডেন এগিয়ে আছেন বলে মন্তব্য করছেন বিশ্লেষকরা। তবে এ ফল মানতে না রাজ বিশ্বের ক্ষমতাধর প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্যাম্প। ভোট বাতিল চেয়ে তিনি ইতোমধ্যে আদালতে মামলা করেছেন। পাশাপাশি ক্ষমতা না ছাড়াও হুমকি তুলছেন বলে গণমাধ্যম এসেছে।

২০১২ থেকে ২০১৮ সালের মধ্যে ১৬৬ টি দেশে অনুষ্ঠিত প্রেসিডেন্ট ও সংসদ নির্বাচনের মান নিয়ে সূচক প্রকাশ করেছে যুক্তরাষ্ট্রের হাভার্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের ‘দ্য ইলেক্টোরাল ইন্টিগ্রিটি প্রজেক্ট‘। সেখানে বিশ্বের যাবতীয় জাতীয় নির্বাচন ও স্থানীয় নিবার্চনের সামগ্রিক বিষয় নিয়ে বিশ্লেষণ করা হয়েছে। ২০১২ থেকে ২০১৮ সালের মধ্যে বাংলাদেশে দুটি সংসদ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছে। সূচকে দেখা যায় বাংলাদেশের স্কোর ৩৮।

ওই জড়িপে যে সব বিষয় নিয়ে বিশ্লেষণ করে মূল্যায়ন করা হয়-

নির্বাচনি সততার ধারণ সূচক: যুক্তরাষ্ট্রের হাভার্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের ‘দ্য ইলেক্টোরাল ইন্টিগ্রিটি প্রজেক্ট’ ২০১৯ সালের মে মাসে ‘পারসেপশন অব ইলেক্টোরাল ইন্টিগ্রিটি বা নির্বাচনি সততার ধারণা সূচক প্রকাশ করেছে। এতে ২০১২ থেকে ২০১৮ সালের মধ্যে ১৬৬টি দেশে অনুষ্ঠিত ৩৩৭টি প্রেসিডেন্ট ও সংসদ নির্বাচন কেমন হয়েছে তুলে ধরা হয়।

বিবেচনায় ১১ বিষয়: নির্বাচনি আইন, নির্বাচনের প্রক্রিয়া, আসনের সীমানা নির্ধারণ, ভোটার নিবন্ধন, মিডিয়া কাভারেজ, প্রচারণার অর্থায়ণ, ভোটগ্রহণের প্রক্রিয়া, ভোট গণনা, ফলাফল ও নির্বাচন কর্তৃপক্ষ- এই ১১ টি বিষয় বিবেচনায় নিয়ে সূচকটি প্রকাশ করা হয়েছে।

ভোটের একমাস পর: একটি দেশের নির্বাচন অনুষ্ঠানের এক মাস পর সেই দেশের বিশেষজ্ঞরা নির্বাচনের মান যাচাই করেন।

সবচেয়ে ভালো নির্বাচন ডেনমার্কে: ১১টি বিষয়ের নাম্বার যোগ করে ০ থেকে ১০০ এর মধ্যে স্কোর করা হয। সবচেয়ে বেশি ৮৬ নাম্বার পেয়ে ডেনমার্কের নির্বাচনের মান সবচেয়ে ভালো বলে বিবেচিত হয়েছে।

সবচেয়ে খারাপ চার দেশে: সূচকের মানের দিক দিয়ে সিরিয়া, বুরুন্ডি, ইকুয়েটরিলায় গিনি ও ইথিওপিয়ার স্কোর সমান-২৪।

বাংলাদেশের অবস্থান: ২০১২ থেকে ২০১৮ সালের মধ্যে বাংলাদেশে দুটি সংসদ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছে। সূচকে দেখা যায় বাংলাদেশের স্কোর ৩৮। সে হিসেবে ১৬৬টি দেশের মধ্যে ২১টি দেশের চেয়ে বাংলাদেশের নির্বাচনের মান ভালো। দক্ষিণ এশিয়ার একমাত্র আফগানিস্তানের স্কোর (৩৪) এর চেয়ে বাংলাদেশের মান ভালো। অন্যান্য দেশগুলোর স্কোর ভুটান (৬৬), ভারত (৫৯), নেপাল (৫৬). মালদ্বীপ (৫২) ও পাকিস্তান (৪৭)।

সর্বশেষ নিউজ