২৩, এপ্রিল, ২০২৪, মঙ্গলবার
     

মুন্সীগঞ্জে প্রেম করে হিন্দু মেয়ে বিয়ে করে বিপাকে যুবক

আপন সরদার টঙ্গিবাড়ী (মুন্সীগঞ্জ)প্রতিনিধি-
প্রাপ্তবয়স্ক এক হিন্দু মেয়েকে ইসলাম ধর্মীয় রীতিনীতি মেনে প্রেম করে বিয়ে করার পরেও মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রানির অভিযোগ উঠেছে এক যুবককে। ভুক্তভোগী যুবক টিটু মোল্লা লৌহজং উপজেলার নওপাড়া গ্রামের খোকন মোল্লার ছেলে।

জানাগেছে প্রেমের সম্পর্কের জেরে ধরে একই গ্রামের রঞ্জিত রাজবংশীর মেয়ে পূজা রাজবংশীকে গত ১৪ আগস্ট ২০২৩ ইং তারিখে বিয়ে করে সে। তাদের জাতীয় পরিচয়পত্রে দেখা যায় পূজা রাজবংশীর বয়স ১৯ বছর অন্যদিকে টিটু মোল্লার বয়স ২৫বছর।
কিন্তু পূজা রাজবংশীর মা সাধনা রাজবংশী তার মেয়ের বয়স ১৭ বছর দাবি করে গত ৮ই আগস্ট তার মেয়েকে অপহরণ করে নিয়ে যাওয়া হয়েছে বলে লৌহজং থানায় মামলা দায়ের করেন।

এ ব্যাপারে পূজা রাজবংশী বলেন, আমি ভালোবেসে টিটু মোল্লাকে বিয়ে করছি। কিন্তু আমার পরিবার মেনে নিচ্ছে না। আমি হিন্দু ধর্মে ছিলাম মুসলমান ধর্মে আসছি। আমি চাইনা আর হিন্দু ধর্মে যাইতে। আমি মুসলিম ধর্মে আইছি আমি মুসলিম ধর্মে থাকতে চাই। আমার জন্য দোয়া করবেন আমি যাতে ধর্ম ঠিকমতো পালন করতে পারি সে তৌফিক যাতে আমাকে দান করে। আমাকে কেউ জোর করে আনে নাই আমি নিজের ইচ্ছায় আসছি। আমি নিজের ইচ্ছায় টিটুর সাথে থাকতে চাই । আমার স্বামীর বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা করছে লৌহজং থানায়। আমি চাই এই মামলাটা যেন খারিজ করে দেয় তদন্ত করে।

এ ব্যাপারে টিটু মোল্লা বলেন আমার বয়স ২৫। আমি যাকে বিয়ে করছি তার বয়স ১৯ ।আমরা দুজনেই প্রাপ্তবয়স্ক । আমরা নিজ ইচ্ছায় বিয়ে করছি ।আমরা দুজন স্বেচ্ছায় বিয়ে করছি ।আমি যেহেতু একটি হিন্দু মেয়েকে বিয়ে করছি দুজনের জন্য সবার কাছে দোয়া চাই। আমি একটি হিন্দু মেয়েকে আমাদের ইসলাম ধর্মের রীতিনীতি মাইনা বিয়ে করছি ওই মেয়ের মা আমার নামে মিথ্যা মামলা করছে আমাকে অনেকে ফোন দিয়ে হয়রানি করে ডিস্টার্ব করে টাকা পয়সা চায়। আমি সুষ্ঠু বিচার চাই ‌।

এই ব্যাপারে পূজা রাজবংশীর মা সাধনা রাজবংশী বলেন, তার মেয়ের জন্ম২০০৪ সালে । পূজা বলছে তাকে কেউ জোর করে আনেনি সে স্বেচ্ছায় চলে গেছে এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ও মারা গেছে আমাদের কোন মেয়ে নাই। তাহলে আপনি যে মামলাটা করছেন সেটার কি করবেন জানতে চাইলে তিনি বলেন, আমি মামলা উঠাবনা ও যতদিন পারে ঝুলতে থাক ‌।

এ ব্যাপারে মামলা তদন্তকারী কর্মকর্তা লৌহজং থানা পুলিশের উপ-পরিদর্শক অখিল রঞ্জন সরকার বলেন, মামলাটি তদন্ত চলছে।

               

সর্বশেষ নিউজ