৯, ডিসেম্বর, ২০২৩, শনিবার

হত্যার পর ডোবায় পুঁতে রাখা হয়েছিলো দুই মাসের শিশুকে

মোঃ জাফর মিয়া, মুন্সীগঞ্জ প্রতিনিধি ঃ
দুই মাসের শিশু আযানকে হত্যা করে ডোবায় পুঁতে রাখা হয়েছিলো। সোমবার ভোর সকাল সাড়ে ৬ টার দিকে দুই মাসের শিশু আযানের মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। গত পাঁচদিন আগে মুন্সীগঞ্জের মিরকাদিমে বসত ঘর থেকে চুরি হয় শিশুটি। পরে আজ সোমবার পাঁচ দিন পর দুই মাসের শিশু আযানের মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য মুন্সীগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালের মর্গে প্রেরণ করে পুলিশ ।

শিশু আযান মুন্সীগঞ্জ মিরকাদিম পৌরসভার গোপালনগর এলাকায় মো. শরীফ মিয়ার ছেলে।

শিশু আযানের মামা মো. মোক্তার জানান, প্রতিবেশি ফারুকের বাড়ির পেছনে ডোবায় পুঁতে রাখা অবস্থায় তার মরদেহের কিছু অংশ দেখতে পান স্থানীয়রা। সেখান থেকে শিশুটির মরদেহ টেনে তুলে পুলিশকে খবর দেয় । পরে পুলিশ ঘটনাস্থলে এসে শিশুর মরদেহ উদ্ধার করে । তিনি আরো জানান,পাশ্ববর্তি ফারুক এবং তার পরিবারের সদস্যরা এ ঘটনায় জড়িত থাকতে পারে। সকাল থেকেই তাদের ঘরে তালা দিয়ে পলাতক রয়েছে তারা। তাদের গ্রেপ্তারে পুলিশ অভিযান চালাচ্ছে।

মুন্সীগঞ্জ সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আমিনুল ইসলাম জানান, কি ভাবে শিশুটি হত্যা করা হয়েছে ময়নাতদন্তের পর জানা যাবে। তবে বিষয়টি নিয়ে তদন্ত শুরু করেছে পুলিশের একটি টিম৷ এ ঘটনার সাথে যেই জড়িত থাকুক না কেন তাদের দ্রুত আইনের আওতায় আনা হবে।

উল্লেখ্য, গত বৃহস্পতিবার (২৮ সেপ্টেম্বর) সকাল ৭ টার দিকে দুই মাসের শিশু আযানকে ঘরে রেখে প্রকৃতির ডাকে সারা দিতে যান তার মা শ্রাবণী বেগম। সে সুযোগে কে বা কারা ঘর থেকে শিশু আযানকে চুরি করে নিয়ে যায় । পরে অনেক খোঁজাখুঁজি করেও সন্ধান না পেয়ে শিশু আযানের মামা মোক্তার হোসেন মুন্সীগঞ্জ সদর থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন।

সর্বশেষ নিউজ