১৮, এপ্রিল, ২০২৪, বৃহস্পতিবার
     

মিরাজ, শান্তর ব্যাটে জয়ের সুবাস পাচ্ছে বাংলাদেশ

Afsana Afroze:

মিরাজ ও শান্তর ব্যাটে ভর করে জয়ের লক্ষ্যে এগোচ্ছে বাংলাদেশ। ছবি: এএফপি
৩০ রান না পেরোতেই দুই উইকেট হারিয়ে কিছুটা ব্যাকফুটে চলে যায় বাংলাদেশ। এমন বাস্তবতায় দলের হাল ধরেন মেহেদি হাসান মিরাজ ও নাজমুল হোসেন শান্ত। এ দুজনের ব্যাটে ভর করে ২২ ওভার শেষে দুই উইকেট হারিয়ে ১০০ রান করেছে বাংলাদেশ।

অধিনায়ক সাকিব আল হাসান ও মেহেদি হাসান মিরাজের দাপুটে বোলিংয়ে আফগানিস্তানকে ১৫৬ রানে থামিয়ে দিয়ে লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে শুরুটা ভালো করতে পারেনি বাংলাদেশ।

দলীয় ১৯ রানের মাথায় ব্যক্তিগত পাঁচ রান করে রান আউট হন ওপেনার তানজিদ হাসান। আরেক ওপেনার লিটন দাসও নিজের নামের সঙ্গে সুবিচার করতে পারেননি। দলীয় ২৭ রানের সময় ব্যক্তিগত ১৩ করে প্যাভিলিয়নে ফেরেন তিনি।

৩০ রান না পেরোতেই দুই উইকেট হারিয়ে কিছুটা ব্যাকফুটে চলে যায় বাংলাদেশ। এমন বাস্তবতায় দলের হাল ধরেন মেহেদি হাসান মিরাজ ও নাজমুল হোসেন শান্ত। এ দুজনের ব্যাটে ভর করে ২২ ওভার শেষে দুই উইকেট হারিয়ে ১০০ রান করেছে বাংলাদেশ। জয়ের জন্য এখনও দরকার ৫৭টি রান।

এ প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত মিরাজ অপরাজিত ৪৯ ও শান্ত ২৮ রান করেন।

ভারতের ধর্মশালায় শনিবার বিশ্বকাপে নিজেদের প্রথম ম্যাচে টস জিতে শুরুতে আফগানিস্তানকে ব্যাট করতে পাঠান বাংলাদেশের অধিনায়ক সাকিব আল হাসান।

ব্যাটিংয়ে নেমে দক্ষিণ এশিয়ার দেশটির দুই ওপেনার আস্থার সঙ্গে খেলতে থাকেন। আফগানিস্তান দলের ৪৭ রানের মাথায় প্রথম ব্রেকথ্রু পায় বাংলাদেশ। সাকিবের বলে তানজিদ হাসানের তালুবন্দি হন ২০ বল থেকে ২২ রান করা ইব্রাহিম জাদরান।

দলীয় রান অর্ধশতক পার হওয়ার আগে প্রথম উইকেট হারানোর পর ফের জুটি গড়ার চেষ্টা করেন আফগান দুই ব্যাটার রহমানুল্লাহ গুরবাজ ও রহমত শাহ, তবে জুটিটি বিপজ্জনক হয়ে ওঠার আগেই রহমতকে ফেরান সাকিব।

লিটন দাসের তালুবন্দি হয়ে প্যাভিলিয়নে ফেরার আগে রহমত ২৫ বল থেকে খেলেন ১৮ রানের ইনিংস।

দ্বিতীয় উইকেট হারানোর পর ঝুলিতে ২৯ রান যোগ করে তৃতীয় ব্যাটারকে হারায় আফগানিস্তান। এবার হাশমতুল্লাহ শহিদির উইকেটটি তুলে নেন মেহেদি হাসান মিরাজ। আফগানিস্তানের রান তখন ১১২।

২৪তম ওভারের চতুর্থ বলে হাশমতুল্লাহ ফিরে যাওয়ার পর ২৫তম ওভারের দ্বিতীয় বলে রহমানুল্লাহ গুরবাজকে ফেরান মুস্তাফিজুর রহমান। আফগানিস্তানের রান তখনও ১১২। দলীয় সর্বোচ্চ ৪৭ রান করে প্যাভিলিয়নে ফিরতে হয় গুরবাজকে।

দ্রুততম সময়ে তৃতীয় ও চতুর্থ উইকেট হারানো আফগানিস্তান ম্যাচের ২৮তম ওভারের চতুর্থ বলে ১২২ রানের মাথায় নাজিবুল্লাহকে জাদরানকে হারায়।

পরের পাঁচ উইকেটে স্কোর বোর্ডে ৩৪ রান যোগ করতে পেরেছে আফগানিস্তান। আজমতুল্লাহ ওমরজাইয়ের ২২ রান বাদ দিলে কোনো ব্যাটারই দুই অঙ্কের কোটা পার হতে পারেননি।

ব্যাটারদের সম্মিলিত এ ব্যর্থতায় ১৫৬ রানে থেমে যায় আফগানদের ইনিংসের চাকা। আর বাংলাদেশ পায় ১৫৭ রানের সহজ জয়ের লক্ষ্য।

 

               

সর্বশেষ নিউজ