২২, জুন, ২০২৪, শনিবার
     

এক মাস ১৩ দিন পর বড়পুকুরিয়া খনিতে কয়লা উত্তোলন শুরু

ক্রাইমভিশন ডেস্ক

 

কূপ পরিবর্তনের জন্য বন্ধ থাকার এক মাস ১৩ দিন পর আবারও শুরু হয়েছে বড়পুকুরিয়া কয়লা খনিতে উত্তোলন কার্যক্রম। বৃহস্পতিবার (১২ অক্টোবর) দুপুর থেকে কয়লা খনির নতুন ফেইস ১৪১২ থেকে উত্তোলন কার্যক্রম শুরু হয়। এই ফেইসে দুই লাখ ১০ হাজার মেট্রিক টন কয়লা মজুত রয়েছে বলে জানিয়েছে কর্তৃপক্ষ।

কয়লা খনি সূত্রে জানা গেছে, দেশের একমাত্র উৎপাদনশীল বড়পুকুরিয়া কয়লা খনির ১১১৩ নং ফেইস থেকে তিন লাখ ৭৫ হাজার মেট্রিক টন কয়লা উত্তোলন করার পর মজুত শেষ হয়ে যাওয়ায় গত ২৯ আগস্ট উত্তোলন বন্ধ করে দেয় কর্তৃপক্ষ। পরে ওই ফেইসের যন্ত্রপাতি নতুন ফেইস ১৪১২ নম্বরে স্থানান্তরিত করা হয়। অবশেষে সব কার্যক্রম শেষে বৃহস্পতিবার দুপুরে এক মাস ১৩ দিন পর নতুন ফেইস থেকে কয়লা উত্তোলন কার্যক্রম শুরু করে।

সূত্রটি জানায়, কয়লা খনির ভেতর থেকে ফেইস তৈরি করে কয়লা উত্তোলন করা হয়। একটি ফেইসের কয়লার মজুত উত্তোলন করা শেষ হলে ওই ফেইস বন্ধ করে নতুন ফেইস চালু করা হয়। এ জন্য পুরাতন ফেইসের যন্ত্রপাতি নতুন ফেইসে স্থানান্তরিত করে কয়লা উত্তোলনের উপযোগী করা হয়।

পুরাতন ফেইস থেকে যন্ত্রপাতি নতুন ফেইসে স্থানান্তরিত করতে ৪০ দিন থেকে ৪৫ দিন সময় লাগে। এ ছাড়া যন্ত্রপাতিতে ত্রুটি-বিচ্যুতি থাকলে নতুন যন্ত্রপাতি স্থাপন করা হয়। সেক্ষেত্রে বাড়তি সময়ের প্রয়োজন হয়। ফলে এই সময়টাতে কয়লা উত্তোলন বন্ধ থাকে।

তবে কয়লা উত্তোলন বন্ধ থাকলেও এর প্রভাব পড়েনি কয়লা ভিত্তিক বড়পুকুরিয়া তাপ বিদ্যুৎ কেন্দ্রে। ২৯ আগস্ট খনি থেকে উত্তোলন বন্ধ হয়ে যাওয়ার সময়ও কয়লা খনির ইয়ার্ড ও তাপ বিদ্যুৎকেন্দ্রের ইয়ার্ডে এক লাখ ১০ হাজার মেট্রিক টন কয়লা মজুত ছিল। এই পরিমাণ কয়লা দিয়ে এখন পর্যন্ত তাপ বিদ্যুৎকেন্দ্র চালু রয়েছে।

বড়পুকুরিয়া কয়লা খনির ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) প্রকৌশলী সাইফুল ইসলাম সরকার বলেন, নির্ধারিত সময়ের আগেই আমাদের সবার প্রচেষ্টায় এক মাস ১৩ দিনের মাথায় উৎপাদন শুরু হয়েছে।

               

সর্বশেষ নিউজ