২৬, ফেব্রুয়ারি, ২০২৪, সোমবার
     

সমাজকল্যাণমন্ত্রীর ,মুক্তিযোদ্ধা সনদ ‘ভুয়া’ দাবি আপন ভাইয়ের

লালমনিরহাট-২ (আদিতমারী-কালীগঞ্জ) আসনে নৌকার প্রার্থী সমাজকল্যাণমন্ত্রী নুরুজ্জামান আহমেদের মুক্তিযোদ্ধার সনদ ‘ভুয়া’ বলে দাবি করেছেন তারই আপন ছোট ভাই মাহবুবুজ্জামান আহমেদ।

বুধবার (২৭ ডিসেম্বর) রাতে কালীগঞ্জ উপজেলার কাকিনা এলাকায় এক নির্বাচনী সভায় তিনি এ দাবি করেন। মন্ত্রীর ভাইয়ের দাবি, নুরুজ্জামান আহমেদ মুক্তিযোদ্ধার ট্রেনিং নেননি।

মাহবুবুজ্জামান আহমেদ কালীগঞ্জ উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান এবং লালমনিরহাট জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি। তিনি লালমনিরহাট-২ আসনে স্বতন্ত্র প্রার্থী ও জেলা আওয়ামী লীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি সিরাজুল হকের পক্ষে ঈগল প্রতীকের নির্বাচনী প্রচারণা চালাচ্ছেন।

নির্বাচনী সভায় মাহবুবুজ্জামান আহমেদ বলেন, ‘১৯৯৬ সালের আগে আমরা কোনো দিনই সমাজকল্যাণমন্ত্রী নুরুজ্জামান আহমেদকে মুক্তিযোদ্ধা হিসেবে জানতাম না। ১৯৯৬ সালে জাতীয় সংসদ নির্বাচনের পোস্টারে তিনি হঠাৎ করেই মুক্তিযোদ্ধা লেখেন। এ সময় স্থানীয় মুক্তিযোদ্ধারা ক্ষুব্ধ হয়েছিলেন। মুক্তিযোদ্ধা সংসদের কমান্ডার মন্ত্রীর কাছে এ ব্যাপারে জানতে চেয়েছিলেন। ওই সময় মন্ত্রী বলেছিলেন, তিনি সব কাগজপত্র বানিয়ে নিয়েছেন।’

তিনি বলেন, ‘মুক্তিযুদ্ধ চলাকালীন আমার ভাই নুরুজ্জামান আহমেদের বয়স ২২-২৩ বছর ছিল। আমাদের পারিবারিক পাটের ব্যবসা দেখাশুনা করতেন তিনি। মুক্তিযুদ্ধের সময় পাট কেনার জন্য তিনি ভারতের কোচবিহারের সিতাই এলাকায় অবস্থান করেছিলেন।’

‘সমাজকল্যাণমন্ত্রী নুরুজ্জামান আহমেদ মুক্তিযোদ্ধার ট্রেনিং নেননি’ উল্লেখ করে মাহবুবুজ্জামান আহমেদ বলেন, ‘তিনি কোনো যুদ্ধে অংশগ্রহণ করেননি। তার মুক্তিযোদ্ধা সনদটি ভুয়া।’

কালীগঞ্জ উপজেলার ভোটমারী ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান ও রংপুর মহানগর আওয়ামী লীগের সদস্য বীরমুক্তিযোদ্ধা গোলাম মর্তুজা হানিফ বলেন, ‘সমাজকল্যাণমন্ত্রী নুরুজ্জামান আহমেদ প্রকৃত মুক্তিযোদ্ধা নন। তার মুক্তিযোদ্ধা সনদ ভুয়া। নুরুজ্জামান আহমেদ কোথায় ট্রেনিং নিয়েছেন, কোথায় যুদ্ধ করেছেন এবং কারা তার সহযোদ্ধা ছিলেন এসবের কোনো কিছু বলতে পারবেন না। কালীগঞ্জ উপজেলার সকল মুক্তিযোদ্ধা বিষয়টি জানেন। কিন্তু ক্ষমতার দাপট থাকায় কেউ-ই সমাজকল্যাণমন্ত্রীর বিরুদ্ধে কিছু বলতে সাহস পায় না।’

অভিযোগের বিষয়ে সমাজকল্যাণমন্ত্রী নুরুজ্জামান আহমেদ বলেন, ‘আমি মুক্তিযুদ্ধের ট্রেনিং নিয়েছি কি না, যুদ্ধ করেছি কি না, আমার সহযোদ্ধা আছে কি না, সেটা আমি জানি। ওরা আমার বিরুদ্ধে মিথ্যাচার করছে। সময় আসলে ওদের মিথ্যাচারের সঠিক জবাব দেওয়া হবে।’

               

সর্বশেষ নিউজ